যে কারনে শিক্ষককে হত্যা করেছে ‘সেই শিক্ষার্থী’

দেবীগঞ্জ সংবাদ ডেস্ক
আপডেটঃ ১৩ জুলাই, ২০২২ | ৭:৪০ 381 ভিউ
দেবীগঞ্জ সংবাদ ডেস্ক
আপডেটঃ ১৩ জুলাই, ২০২২ | ৭:৪০ 381 ভিউ
Link Copied!

বুধবার আশুলিয়ার হাজি ইউনুস আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষক উৎপল কুমারকে স্ট্যাম্প দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করে সেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেরই শিক্ষার্থী আশরাফুল আহসান (জিতু)। এ ঘটনায় সেই শিক্ষার্থীকে গ্রেফতার করা হয়।

 

প্রেমে বাধা দেওয়ার জন্যই ক্রিকেট স্টাম্প দিয়ে পিটিয়ে  শিক্ষক উৎপল কুমারকে (সরকার) হত্যা করেন শিক্ষার্থী আশরাফুল আহসান (জিতু)। বুধবার হত্যাকাণ্ডের মূল আসামি জিতু (১৯) স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে এ কথা বলেন।

 

ঢাকার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রাজীব হাসানের খাসকামরায় ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় এই জবানবন্দি দেন আসামি জিতু। রাজীব হাসান জবানবন্দি রেকর্ড শেষে আশরাফুলকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

 

ওই আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর আনোয়ারুল কবির বাবুল গণমাধ্যমকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

 

গত ২৫ জুন সাভারের আশুলিয়ার হাজী ইউনুস আলী স্কুল ও কলেজে ছাত্রীদের ক্রিকেট টুর্নামেন্ট চলাকালে শিক্ষক উৎপল কুমার সরকারকে স্টাম্প দিয়ে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে আহত করেন জিতু। তিনি ওই স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্র। পরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শিক্ষক উৎপল কুমারের মৃত্যু হয়। ঘটনার পরপরই আশরাফুল পালিয়ে যান। গত বুধবার গাজীপুরের শ্রীপুর এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে র‌্যাব পরে আশরাফুলের জন্মসনদ ও জেএসসির সনদ পরীক্ষা করে শিশু আদালত বলেছেন, তিনি প্রাপ্তবয়স্ক। পরে তাকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেন ম্যাজিস্ট্রেট আদালত।

 

আদালত সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে জিতু বলেছেন, তার প্রেমিকা কলেজের উচ্চ মাধ্যমিকের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী। অনেক দিন থেকে তার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক। দুজন একসঙ্গে কলেজে ঘোরাঘুরি করতেন। হত্যাকাণ্ডের তিন দিন আগে জিতু তার প্রেমিকাকে সঙ্গে নিয়ে কলেজ ক্যাম্পাসে কেক খাচ্ছিলেন। তখন সেখানে আসেন কলেজ শিক্ষক উৎপল কুমার। তিনি জিতু ও তার প্রেমিকাকে বকাবকি করেন। তখন জিতুও শিক্ষক উৎপলকে গালিগালাজ করেন।

 

জবানবন্দিতে জিতু আরও বলেন, এ ঘটনার পর শিক্ষক উৎপল কুমার জিতু ও তার প্রেমিকার অভিভাবকের কাছে অভিযোগ দেন। এর জের ধরে আশরাফুলের প্রেমিকা কলেজে আসা বন্ধ করে দেন। পরে জিতু পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী, বাড়ি থেকে একটি ক্রিকেট খেলার স্ট্যাম্প নিয়ে সেদিন কলেজে আসেন। শ্রেণিকক্ষের পেছনে সেটি লুকিয়ে রাখেন। কলেজ মাঠে ছাত্রীদের ক্রিকেট টুর্নামেন্ট চলাকালে শিক্ষক উৎপল কুমারকে মাঠের এক কোণে একা দাঁড়িয়ে থাকতে দেখে স্টাম্প দিয়ে অতর্কিত তাকে বেধড়ক আঘাত করেন। শিক্ষক উৎপলকে প্রথমে পেছন থেকে মাথায় আঘাত করা হয়। তখন অপর কলেজশিক্ষক শরীফ জিতুকে হাতেনাতে ধরে ফেলেন। তবে মাটিতে লুটিয়ে পড়া শিক্ষক উৎপলকে সাহায্য করার জন্য এগিয়ে গেলে জিতু পালিয়ে যান।

 

জবানবন্দিতে জিতু আরও বলেন, তিনি পালিয়ে প্রথমে মানিকগঞ্জ যান। পরে চলে যান পাবনায়। পরে সেখান থেকে গাজীপুরের শ্রীপুরে আসেন।

 

এর আগে গতকাল জিতু আহসানের বাবা উজ্জ্বল হোসেন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। তিনি এখন কারাগারে আছেন।

 

 

আর.ডিবিএস

শীর্ষ সংবাদ:
ট্যাংক ধ্বংস করলেই মিলবে ৭৫ লাখ টাকা পুরস্কার! ফেসবুক লাইভে এসে মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা দেবীগঞ্জে ইকরা মডেল মাদ্রাসায় অভিভাবক সমাবেশ অনুষ্ঠিত  পঞ্চগড়ে পুলিশ সার্ভিস এসোসিয়েশনের শীতবস্ত্র বিতরণ ইসরাইলের হামলায় প্রাণ হারালো ৯ ফিলিস্তিনি এক মুরগির দাম ২ লাখ টাকা! দেবীগঞ্জে শেখ কামাল এ্যাথলেটিকস প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত দেবীগঞ্জে কৃষি জমির পাশ থেকে যুবকের মরদেহ উদ্ধার ফেব্রুয়ারির ১৯ তারিখ রাষ্ট্রপতি নির্বাচন : ইসি দেবীগঞ্জে পানি উন্নয়ন বোর্ডের বৈদ্যুতিক হালকা সেচ প্রকল্পের সেচ কার্যক্রম উদ্বোধন  বর টাকা গুনতে না পারায় বিয়ে ভেঙে দিলেন কনে! মটরসাইকেলে ‘বন্ধুর’ সঙ্গে ঘুরতে গিয়ে প্রাণ গেল বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর ফ্রি-ফায়ার খেলার সময় ট্রেনে কাটা পড়ে যুবকের মৃত্যু নিউজিল্যান্ডের নতুন প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন ক্রিস হিপকিনস যে কারণে পিটিআই প্রধানের পদ ছাড়ছেন ইমরান খান পঞ্চগড়ে ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে অর্ধ সহস্রাধিক শীতার্তের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ রোহিঙ্গা ক্যাম্প একসময় আমাদের জন্য বিষফোঁড়া হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শৃঙ্খলার পাশাপাশি সবুজের নান্দনিকতায় ফিরেছে দেবীগঞ্জ ভূমি অফিস দেবীগঞ্জে ভোক্তার অভিযান; তিন প্রতিষ্ঠানকে অর্থদণ্ড স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে হাইকোর্টে তলব